আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনাভাইরাস পরস্থিতি আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে ভারতে। বিশেষজ্ঞদের আশংকা সত্যি করে মে মাসে বাড়তে শুরু করেছে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা। গত একদিনে দেশটিতে চার হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন যে দেশটিতে মে মাসে দৈনিক মৃত্যু ৫ হাজারে পৌঁছাতে পারে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, একদিনে ভারতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ১ হাজার ৩২৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ১৯৪ জনের।

ভারতে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২ কোটি ১৮ লাখ ৮৬ হাজার ৬১১ জন। মারা গেছেন ২ লাখ ৩৮ হাজার ২৬৫ জন।

ভারতে প্রতিদিনই সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা আগের রেকর্ডকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে। প্রচণ্ড অক্সিজেন সংকটে মৃত্যু হয়েছে বহু মানুষের। শ্মশানে জায়গার সংকুলান না হওয়ায় দিল্লিসহ কয়েক রাজ্যে গণচিতা তৈরি করা হয়েছে। খোঁড়া হচ্ছে গণকবর এবং মরদেহ পোড়াতে বানানো হয়েছে অস্থায়ী শ্মশান।

স্বাস্থ্যকর্মীরা জানিয়েছেন, এর আগে এমন অবস্থা কখনো দেখেননি তারা। ভারতে এখন যে হারে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তার গতি যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে অনেক বেশি। ভারতে এমন পরিস্থিতি চলমান থাকলে যুক্তরাষ্ট্রও পেছনে পড়ে যাবে। করোনার প্রকোপ ভয়াবহ আকার ধারণ করায় ভারতে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ে বৈশ্বিক জনস্বাস্থ্যর অধ্যাপক এবং রোগতত্ত্ববিদ ভ্রমর মুখার্জি ভারতের করোনাভাইরাস পরিস্থিতির সম্পর্কে বিবিসিকে বলেছেন, ভাইরাস অন্তরালে তার কাজ করে চলেছে, দ্বিতীয় রাউন্ডে নামার আগে, সে নিজেকে আরও সতেজ ও সবল করে তুলছে, অতর্কিতে ছোবল মারবে, যখন আমরা আমাদের মাস্ক নামিয়ে দিয়েছি, দিক দিগন্তের অবগুণ্ঠন আবার তার আক্রমণের আহবানে খোলা।

মহামারির ইতিহাস পড়লে দেখা যায় যে দ্বিতীয় ঢেউ অনেক সময়েই হয়ে ওঠে জলোচ্ছ্বাস, কারণ ঠিক এই ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি ঘটে বারংবার, মনুষ্যচরিত্রে আসে বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করার স্বভাবগত প্রবৃত্তি ও তার প্রতিদ্বন্দ্বী ধূর্ত ভাইরাসের ঘটে দ্রুত বিবর্তন। ভারতেও এই দুটি প্রক্রিয়ার সমাপাতন ঘটেছে। নূতন সব রূপ ধারণ করেছে ভাইরাস, তার জিনোমটাকে বদলে নিয়ে।

তিনি বলেন, মনে রাখবেন এটা শেষ ঢেউ নয়। এবার যে ভুল করেছি আমরা আর যেন না হয়। টিকা নিন। এটাই আমাদের এই যুদ্ধ থেকে বেরোনোর বিজয়-টিকা। তারপরও বাইরে বেরোলে মাস্ক পরে থাকুন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.