মাদারীপুর প্রতিনিধি

মাদারীপুরের শিবচরে কাঁঠালবাড়ি পুরাতন ঘাটে বাল্কহেডের সঙ্গে স্পিডবোটে দুর্ঘটনায় আক্রান্ত স্পিডবোট চালক শাহ আলম গাঁজা ও ইয়াবায় নেশাগ্রস্ত ছিলেন বলে জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ।

শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় ডোপটেস্টের নমুনায় এ তথ্য নিশ্চিত হয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। বর্তমানে ওই চালক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, দুর্ঘটনার পর জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চালক মো. শাহ আলমের ডোপটেস্ট করাতে বলেন। পরে আমরা ঢাকা থেকে কিট এনে ডোপটেস্ট করি। ডোপটেস্টে তার পজিটিভ এসেছে। নমুনায় গাঁজা ও ইয়াবার অস্তিত্ব মিলেছে। অর্থাৎ স্পিডবোটটি চালানোর সময় তিনি মাদকাসক্ত ছিলেন।

শিবচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসাদুজ্জামান জানান, দুর্ঘটনার পর জীবিত দুই-তিনজন যাত্রীর সঙ্গে আমরা কথা বলেছিলাম। তাদের কথায়ও বুঝা গেছে যে, স্পিডবোটের চালক শাহ আলম তখন নেশাগ্রস্ত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ৩ মে ভোরে ঘাটে নোঙর করে রাখা বালুবোঝাই বাল্কহেডের সঙ্গে শিমুলিয়া থেকে আসা একটি দ্রুতগতির স্পিডবোটের ধাক্কা লাগলে ঘটনাস্থলেই ২৬ জনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বুধবার জেলা প্রশাসনের ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.