বিশেষ প্রতিবেদক :

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে রাজধানীর নয়টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছে বিএসটিআই। রাজধানীর মিরপুর ও কেরানীগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে পৃথক তিনটি ভ্রাম্যমাণ আদালত এসব জরিমানা করে।

এর মধ্যে সোমবার বিএসটিআই ও র‌্যাব-৪ এর যৌথ উদ্যোগে ম্যাজিস্ট্রেট মো. আনিসুর রহমানের নেতৃত্বে মিরপুর এলাকায় আগোরা লিমিটেডকে বিএসটিআইয়ের লাইসেন্স/ছাড়পত্র গ্রহণ ব্যতিরেকে বিস্কুট পণ্যের মোড়কে বিএসটিআইয়ের লোগো ব্যবহার করায় এক লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

বিএসটিআই জানায়, আগোরায় ঢাকা ফার্ম কর্তৃক উৎপাদনকৃত ১২টি পণ্য বিক্রি হচ্ছিল। এগুলোর মোড়কজাতকরণ নিবন্ধন সনদ ছিল না। এছাড়াও ইয়া নবাবী, রেলিশ এভরিডে ব্র্যান্ডের বিস্কুটে যথাক্রমে ৪০০ গ্রামে ৪০ গ্রাম এবং ৪৪০ গ্রামে ৩০ গ্রাম কম ছিল। এ অপরাধে ওজন ও পরিমাপ মানদন্ড আইন ২০১৮ এর ২৪(১) এবং ২৯ ধারায় জরিমানা আদায় করা হয়।

এছাড়াও ওই এলাকায় অনুমোদন না থাকায় এবং স্বাস্থ্য ও পরিবেশগত ব্যত্যয় ঘটায় সুপার মর্নিং ফুড প্রোডাক্টকে ৩ লাখ টাকা, সাথী আইসক্রিম ফ্যাক্টরিকে ১ লাখ টাকা, রস লিমিটেদকে ৫ লাখ টাকা, গ্রামীন সুইটমিট বেকারি অ্যান্ড ফুড লিমিটডকে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা, আয়শা ব্রেড অ্যান্ড বিস্কুট ফ্যাক্টরিকে এক লাখ টাকা, হাবিব বেকারিকে ৭৫ হাজার টাকা এবং ভারজিন বেকারিকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এ অভিযানে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আক্তারুজ্জামান ও প্রসিকিউটিং অফিসার হিসেবে বিএসটিআইয়ের ফিল্ড অফিসার (সিএম) মো. রেজানুর রহমান সরকার উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া বিএসটিআইয়ের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রাশিদা আক্তারের নেতৃত্বে ও ডিএমপির সহযোগিতায় ঢাকা মহানগরীর কেরানীগঞ্জ এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়।

অভিযানে সাগর ফুড প্রোডাক্টস বিএসটিআইয়ের লাইসেন্স গ্রহণ না করে নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে সেমাই তৈরি ও বিএসটিআইয়ের মানচিহ্ন ব্যবহার করে বিক্রয়, বিতরণ ও বাজারজাত করায় পঁচিশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এ অভিযানে বিএসটিআইয়ের প্রসিকিউশন অফিসার হিসেবে প্রকৌশলী এ এন এম ফরহাদ হোসেন, ফিল্ড অফিসার (সিএম) অংশগ্রহণ করেন।

By sohail

Leave a Reply

Your email address will not be published.