নিজস্ব প্রতিবেদক

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার তল্লা মসজিদের পাশের একটি ভবনে বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম আলেয়া বেগম।

রবিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জের ওই ঘটনায় দগ্ধ হওয়ার পর ২৩ এপ্রিল আলেয়া বেগমকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তার শরীরের ৯৫ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

গত শুক্রবার ভোরে ফতুল্লার তল্লা এলাকায় একটি তিনতলা বাড়ির তৃতীয় তলায় গ্যাসের লিকেজ থেকে জমে থাকা গ্যাস বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে নারী ও শিশুসহ ১১ জন দগ্ধ হন। তাদের মধ্যে ছয়জন একই পরিবারের।

আইসিইউতে চিকিৎসাধীন আলেয়া বেগমের স্বামী হাবিবর রহমানের ৮৫ শতাংশ ও শাশুড়ি সামান্তা বেগমের শরীরের ৬০ শতাংশ পুড়ে গেছে। তাঁদের দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এছাড়া সামিউলের শরীরের ১০ শতাংশ, তাবাসসুম মীমের শরীরের ২৫ শতাংশ, মীমের ৩ মাস বয়সী ছেলে মাহিরের ২০ শতাংশ, লিমনের ২০ শতাংশ পুড়ে গেছে। তারাও বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.