বিনোদন প্রতিবেদক

চলতি বছরে ‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’-এর দ্বিতীয় আসরে সেরা সুন্দরী নির্বাচিত হন তানজিয়া জামান মিথিলা। গত ৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় এই সুন্দরী প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফিনালে। সেখানে চ্যাম্পিয়ন মিথিলার মাথায় মুকুট পরিয়ে দেন বলিউড অভিনেত্রী চিত্রাঙ্গদা সিং। নিয়ম মতো, আগামী ১৬ মে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ‘মিস ইউনিভার্স’-এর মূল প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করার কথা ছিল মিথিলার।

কিন্তু কপাল খারাপ এই সুন্দরীর। ১৬ মে যুক্তরাষ্ট্রে ‘মিস ইউনিভার্স ২০২০’ প্রতিযোগিতার ৬৯তম আসরে তিনি অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’-প্রতিযোগিতার ন্যাশনাল ডিরেক্টর শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘লকডাউনের কারণে আমরা সব প্রস্তুতি নিতে পারিনি। ভিসা প্রসেসিংও শেষ হয়নি। ‘মিস ইউনিভার্স’ থেকে আমাদের কিছু শর্ত দেয়া হয়েছিল। বাংলাদেশের সৌন্দর্য নিয়ে একটি ভিডিও নির্মাণের কথা ছিল। কিন্তু করোনা ও লকডাউনে কারণে সেই শর্ত পূরণ করা সম্ভব হয়নি। এছাড়া ন্যাশনাল কস্টিউমেও ঘাটতি রয়েছে। এদিকে লকডাউনের কারণে সরকারি অফিসও বন্ধ।’

শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘সবকিছু জানিয়ে ‘মিস ইউনিভার্স’ কর্তৃপক্ষকে মেইল করেছিলাম। তারা আমাদের আবেদন গ্রহণ করেছে। তাই এবারের প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ অংশ নিচ্ছে না, মিথিলাও যাচ্ছেন না। পরবর্তী বছর বাংলাদেশ অংশ নেবে। আগেই আমরা লাইসেন্স কিনে রেখেছি।’

এদিকে মিথিলা জানান, ‘অংশ নিতে না পারার অনেকগুলো কারণ আছে। প্রথমত, আমি এখনো করোনার ভ্যাকসিন নিতে পারিনি। দ্বিতীয়ত, ভিসার জন্য যে আবেদন করেছিলাম, লকডাউনের কারণে তা ক্যানসেল হয়েছে। ন্যাশনাল কস্টিউম এবং প্রি-প্রোডাকশন ভিডিও তৈরি হয়নি। সব মিলিয়ে এবারের পতিযোগিতায় অংশ নেয়া হচ্ছে না।’

তবে বিউটি পেজেন্টদের নিয়ে কাজ করা ‘সাশ ফ্যাক্টর’ নামে অনলাইন ম্যাগাজিনের ফেসবুক পেজে দাবি করা হয়েছে, ‘মিথিলাকে ঘিরে অনেক বিতর্ক চলছে। দেশের অনেক বিউটি পেজেন্টরা মিথিলাকে নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন। তাকে মূল প্রতিযোগিতার জন্য সাপোর্ট করছেন না। এ কারণে মিস ইউনিভার্স ওয়েবসাইট থেকে তার নাম সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ ২০২০’ প্রতিযোগিতার মূল স্লোগান ছিল ‘আমার আত্মবিশ্বাস, আমার সৌন্দর্য’। দেশ ও দেশের বাইরের বাংলাদেশি মিলিয়ে ৯ হাজার ২৫৬ জনেরও বেশি তরুণী এতে অংশগ্রহণ করেন। গত জানুয়ারি থেকে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। প্রাথমিক বাছাইয়ের পরে অডিশনের জন্য ডাক পান ৫০০ জন প্রতিযোগী।

অডিশন পর্বে প্রতিযোগীদের সৌন্দর্য, শিক্ষা, প্রতিভা, বুদ্ধিমত্তাসহ আরও বিভিন্ন যোগ্যতার ওপর ভিত্তি করে শীর্ষ ৫০ জন বাছাই করা হয়। সেখান থেকে সেরা ২০ সুন্দরীকে নিয়ে চলে গ্রুমিং সেশন। সেখান থেকে সেরা ১০ জনকে নির্বাচন করে ৩ এপ্রিল রেডিসন ব্লু ঢাকা ওয়াটার গার্ডেনের বলরুমে অনুষ্ঠিত হয় গ্র্যান্ড ফিনালে। সেখানে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে মিথিলার নাম ঘোষণা করা হয়।

প্রতিযোগিতায় প্রথম রানারআপ হন ফারজানা ইয়াসমিন অনন্যা এবং দ্বিতীয় রানারআপ হন ফারজানা আকতার এ্যানি। গ্র্যান্ড ফিনালেতে মূল বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সংগীতশিল্পী-অভিনেতা তাহসান রহমান খান, মডেল-অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা সাহা মিম, প্রাসাদ বিদাপা (ভারত), মেহরুজ মুনির, আইরিন সমার তিলগার, গৌতম সাহা, রিয়াজ ইসলাম ও সারা সুলেমান।

‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’-এর প্রথম আসর বসেছিল ২০১৯ সালে। ওই আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন শিরিন আক্তার শিলা। তার মাথায় সেরার মুকুট পরিয়ে দেন সাবেক ‘মিস ইউনিভার্স’ ও বলিউড অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন। প্রথম রানারআপ হয়েছিলেন আনিশা ইসলাম এবং দ্বিতীয় রানার্সআপ হন জেসিয়া ইসলাম।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.