ব্যুরো প্রধান, রাজশাহী

দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশাকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে তাকে বিমান বাহিনীর একটি এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় নেয়া হয়। ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে তার চিকিৎসা চলবে।

এর আগে বুধবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় তার দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এরপর রাত ৯টার দিকে তাকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি হাসপাতালের একটি কেবিনে ছিলেন। পরদিন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ব্যবস্থাপনায় তাকে ঢাকায় নেয়া হয়।

ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ প্রামাণিক দেবু জানান, শরীরে জ্বর অনুভব করে ফজলে হোসেন বাদশা বুধবার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। সন্ধ্যায় তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়া যায়। এরপর রাতে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় নেয়া হয়েছে।

দেবু আরও জানান, সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা শারীরিকভাবে ভাল আছেন। তার পুরোপুরি সুস্থতার জন্য তিনি পার্টির পক্ষ থেকে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনার গণটিকা কার্যক্রম শুরুর প্রথম দিনই ৭ ফেব্রুয়ারি ফজলে হোসেন বাদশা রামেক হাসপাতালে গিয়ে টিকা নেন। তিনিই রাজশাহীতে প্রথম টিকা গ্রহণ করে এর উদ্বোধন করেন। সেদিন তিনি সবাইকে টিকা নেয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করেন। গত ৮ এপ্রিল তিনি করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেন। এর ছয় দিন পর তার শরীরে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ল।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.