ডেস্ক রিপোর্ট : স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকায় আসছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তার এই সফরে দুটি প্রকল্পে অনুদান দিতে যাচ্ছে ভারত সরকার।

২৬ মার্চ দিল্লি থেকে ঢাকায় এসে পৌঁছাবেন নরেন্দ্র মোদী। ওই দিন ৩০ কোটি টাকার অনুদান চুক্তি সই করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) সূত্র।

ইআরডি সূত্র জানায়, ‘এস্টাবলিশমেন্ট অব স্পোর্টস ফ্যাসিলিটিজ অ্যান্ড রাজশাহী কলেজ ফিল্ড সারাউন্ডিংস এরিয়া’ প্রকল্পের আওতায় ৫ কোটি ৯৩ লাখ ৪৭ হাজার ৮৩৭ টাকা অনুদান দেবে ভারত। প্রকল্পের আওতায় রাজশাহী কলেজে খেলাধুলার সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি, প্রশাসনিক ও গেম বিল্ডিং এবং সুইমিং পুল নির্মাণ করা হবে।

ভারত আরও বড় অনুদান দেবে ‘এস্টাবলিশমেন্ট অব বাংলাদেশ-ভারত ডিজিটাল সার্ভিস অ্যান্ড এম্পলয়মেন্ট ট্রেনিং সেন্টার’ নির্মাণ প্রকল্পে। এই প্রকল্পে প্রায় ২৫ কোটি টাকার অনুদান দেওয়া হবে। প্রকল্পের আওতায় আইসিটি ট্রেনিং ইক্যুইপমেন্ট দেবে ভারত। এ জন্য প্রকল্পের আওতায় সরকারের সেবাগুলোকে ই-সেবায় রূপান্তরের মাধ্যমে জনগণের কাছে দ্রুত ও সহজে পৌঁছে দেওয়া এবং সব ক্ষেত্রে আইসিটির ব্যবহার বৃদ্ধিকল্পে প্রয়োজনীয় আইসিটি অবকাঠামো স্থাপন করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ।

প্রকল্পটি সার্বিক অর্থে সব নাগরিকের জন্য ডিজিটাল সেবাদান, জ্ঞানভিত্তিক দক্ষ সমাজ গঠন এবং কর্মসংস্থান ও নতুন কাজ সৃষ্টিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। আইসিটি ল্যাব, স্মার্ট ভার্চ্যুয়াল ক্লাসরুম এবং ডিসটেন্স লার্নিং প্লাটফর্মসহ প্রয়োজনীয় আইসিটি অবকাঠামো সুবিধাসম্বলিত একটি ডিজিটাল লিটারেসি সেন্টার স্থাপন করা হবে। এ প্রকল্পের মোট ব্যয় ৬২ কোটি টাকা। এর মধ্যে ভারতীয় অনুদান ২৫ কোটি টাকা বাকি ৩৭ কোটি টাকা বাংলাদেশ সরকার দেবে।

আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন অনুবিভাগ) বিকর্ণ কুমার ঘোষ বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লব আমাদের সামনে অন্যতম চ্যালেঞ্জ। এর ফলে অনেক মানুষ চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে থাকবে। এই ঝুঁকি মোকাবিলায় প্রকল্পটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। প্রকল্পটিতে ভারত সরকার ২৫ কোটি টাকা অনুদান দেবে। ২৬ মার্চ ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর সফরে এই অনুদান চুক্তিসই হবে। প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশ হাইটেক পার্কেরও উন্নয়ন হবে।

By sohail

Leave a Reply

Your email address will not be published.