৩৭তম ব্যাচের বন্ধুদের সাথে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) হিসেবে যোগদান করতে নোয়াখালীতে আসেন মিজানুর রহমান (৩১)। কিন্তু থানায় যোগদান করা হলো না মিজানের। মোটরসাইকেল ও হ্যান্ড টাক্ট্রর চাপায় প্রাণ গেল তার।

মঙ্গলবার রাত ৮টা ৫০ মিনিটের দিকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে মারা যান এসআই মিজানুর রহমান। এরআগে সন্ধ্যা ৭টার দিকে চৌমুহনী চৌরাস্তা-মাইজদী সড়কের চেঙ্গারপোল এলাকায় দুর্ঘটনার শিকার হন তিনি। ঘটনায় আহত হয়েছেন মিজানের ব্যাচমেট এসআই জাহিদুল ইসলাম।

নিহত মিজানুর রহমান ফেনীর সদর উপজেলার সিরাজুল ইসলামের ছেলে। আহত জাহিদুল ইসলাম একই উপজেলার ফরহাদ নগর এলাকার নূরুল ইসলামের ছেলে।

সুধারাম মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইউছুফ জানান, মঙ্গলবার নোয়াখালীতে আসেন এসআই মিজানুর রহমান ও জাহিদুল ইসলাম। সুধারাম মডেল থানায় মিজানুর রহমান ও বেগমগঞ্জ মডেল থানায় জাহিদুল ইসলামের যোগদানের কথা ছিল। সন্ধ্যায় মোটরসাইকেল যোগে জাহিদুলকে বেগমগঞ্জ থানায় পৌঁছে দিতে যাচ্ছিলেন মিজান। পথে একলাশপুরের চেঙ্গারপোল এলাকায় পৌঁছলে একটি হ্যান্ড টাক্ট্রর পিছন দিকে এসে তাদের মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিলে দুই জন ছিটকে সড়কে পড়ে গিয়ে আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মিজানুর রহমান। আহত জাহিদুল ইসলামকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পাঠানো হয়েছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.