মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ঘুম হারাম করে দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের বোন ও উপদেষ্টা কিম ইয়ো জং।

বাইডেন প্রশাসনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী লয়েড অস্টিন ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন এখন দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপান সফরে রয়েছেন। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, সিউলে ব্লিংকেন ও লয়েড দক্ষিণ কোরিয়ার নেতাদের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার বিষয়েও কথা বলবেন। আর সে জন্যই আগাম হুমকি দিয়ে রাখলেন কিম ইয়ো জং।

গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া যৌথ সামরিক মহড়া চালায়। সে সময় গণমাধ্যম রোদোং সিনমুনে উত্তর কোরিয়ার প্রতিক্রিয়া প্রকাশিত হয়। সেখানে কিম ইয়ো জং বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রশাসন আমাদের ভূখণ্ডে বারুদের গন্ধ ছড়াতে চাইছে। আমাদের কথা হলো, যদি আগামী চারবছর ভালভাবে থাকতে চাও, তাহলে সংযত হও। নইলে রাতের ঘুম হারাম হয়ে যাবে।’

জানুয়ারিতে বাইডেনের অভিষেকের কদিন আগে কিম জং উন যুক্তরাষ্ট্রকে তাদের সবচেয়ে ‘বড় শত্রু হিসেবে প্রত্যাখ্যানের ঘোষণা দেন। এরপর পিয়ংইয়ং তাদের সামরিক কুচকাওয়াজে সাবমেরিনচালিত একটি নতুন ব্যালিস্টিক মিসাইল পরীক্ষা চালায়।

মধ্য ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে বিভিন্ন মাধ্যমে কথাবার্তা চালানোর চেষ্টা চালিয়েছিল। তবে তাদের কাছ থেকে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি বলে সোমবার সাংবাদিকদের জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপমুখপাত্র জালিনা পোর্টার। উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক ও ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা নিয়ে ওয়াশিংটন ও পিয়ংইয়ংয়ের মাঝে দীর্ঘদিন ধরে টানাপোড়েন চলছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.