ভারতে একটি মুসলিম ছেলে পানি খেতে মন্দিরে গেলে তাকে বেধড়ক মারধর করার একটি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়েছে। এরপরই মারধরকারী ওই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম শিরিংগি নন্দন যাদব। তিনি বিহারের ভাগলপুর থেকে প্রযুক্তি বিদ্যায় স্নাতক। বেকার ওই ব্যক্তি গত তিন মাস ধরে গাজিয়াবাদের ওই মন্দিরেই রয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তবে গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

সামাজিক মাধ্যম টুইটারে এ নিয়ে চালু হয়েছে স্যরি হ্যাশট্যাগ। এই ঘটনার জন্য তারা ছেলেটির কাছে দুঃখ প্রকাশ করছেন।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, এক ব্যক্তি একটি শিশুর হাত ধরে হিন্দি ভাষায় তার নাম জানতে চাইছেন। জবাবে ছেলেটি জানায় তার নাম আসিফ। পিতার নাম জানতে চাওয়া হলে সে বলে হাবিব।

‘মন্দিরে কি করছ?’ হিন্দিতে ওই ব্যক্তি জানতে চাইলেন। ‘মন্দিরে পানি খেতে এসেছি,’ ছেলেটি জবাব দেয়। এসময় তাকে ভীত সন্ত্রস্ত দেখাচ্ছিল।

এর পরপরই শিশুটিকে মারতে শুরু করেন ওই ব্যক্তি। প্রথমে মাথায় ও পরে সারা শরীরে চড় মারতে থাকেন তিনি। এক পর্যায়ে শিশুটির হাত মুচড়ে তাকে মাটিতে ফেলে দিয়ে অনবরত লাথি ও কিল ঘুষি মারতে শুরু করেন। ভিডিওটি কে বা কারা পোস্ট করেছেন সেটা জানা যায়নি। তবে মুহূর্তের মধ্যেই এটি অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ে।

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদ এলাকায়। একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেছেন, ‘ভিডিওতে যে ব্যক্তি শিশুটিকে মারধর করছিলেন তিনি বিহারের বাসিন্দা। তাকে গ্রেফতার করার পর এবিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।’

দ্য হিন্দু পত্রিকা লিখেছে ছেলেটির পিতা সাংবাদিকদের বলেছেন, বাড়িতে ফেরার পথে তার ছেলে পিপাসার্ত হয়ে পড়লে তার ছেলে পানি খেতে ওই মন্দিরে গিয়েছিল।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.