কক্সবাজারের টেকনাফের দমদমিয়া চেকপোস্টে ধর্ষণের অভিযোগকারী এক এনজিওকর্মীর বিরুদ্ধে বিজিবির করা চাঞ্চল্যকর শত কোটি টাকার মানহানি মামলাটি আমলে নিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার মামলাটি গ্রহণ করে অভিযোগ গঠনের জন্য আগামী ১৫ মার্চ ধার্য করেছেন কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক তামান্না ফারাহ।

বিজিবির গণসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত বছরের ৮ অক্টোবর টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর অধীনস্থ দমদমিয়া চেকপোস্টে অটোরিকশাযাত্রী এনজিও কর্মী ফারজানা আক্তারকে বিজিবির নারী সদস্যরা তল্লাশি করেন। পরবর্তীতে তিনি বিজিবি সদস্যদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন।

তবে, এ অভিযোগটি ভুয়া দাবি করে গেল বছরের ১০ নভেম্বর বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়ন-২ কক্সবাজার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিমের আদালতে ওই এনজিওকর্মীর বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করে। আর ২২ নভেম্বর টেকনাফ থানার ওসি (অপারেশনস) ইন্সপেক্টর শরিফুল কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই এনজিওকর্মীকে ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। ২২ নভেম্বর শুনানি শেষে চলতি ১৪ জানুয়ারি আসামিকে আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দেন কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহা. হেলাল উদ্দিন।

গত ১৪ জানুয়ারি সকালে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে আত্মসমর্পণ করেন অভিযুক্ত এনজিওকর্মী ফারজানা আক্তার। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা তার জামিন আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.