উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের খেলায় সেভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে ফের একবার নিজের জাত চেনালেন নরওয়ের ডর্টমুন্ড ফরোয়ার্ড আর্লিং হলান্ড। ঘরের মাঠে দ্বিতীয় লেগের খেলায় দুটি গোল করে নিজে রেকর্ড গড়েছেন তিনি। আর ম্যাচটি ড্র হয়েছে ২-২ গোল ব্যবধানে। দুই লেগ মিলিয়ে এগিয়ে থাকায় কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড।

হলান্ড ম্যাচে করেছেন দুটি গোল। আর রেকর্ডের সংখ্যা চারটি। প্রথম গোলে প্রতিযোগিতাটির ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে টানা ৬ ম্যাচে গোলের রেকর্ড গড়েন হলান্ড। তার বয়স ২০ বছর ২৩১ দিন।

পরের গোলে নিজের করে নেন দুটি রেকর্ড। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ১৪ ম্যাচে তার গোল হলো ২০টি, ফরাসি ফরোয়ার্ড এমবাপের চেয়ে একটি বেশি। ইউরোপীয় প্রতিযোগিতাটিতে নরওয়ের সর্বোচ্চ গোলের তালিকাতেও উঠলেন চূড়ায়। ১৯ গোল নিয়ে এতদিন রেকর্ডটি ছিল বর্তমানে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ সুলশারের। এছাড়াও সবচেয়ে কম বয়সী ফুটবলার হিসেবে গড়েছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগে টানা গোলের রেকর্ড। এই প্রতিযোগিতায় সবচেয়ে কম ম্যাচে ২০ গোলের রেকর্ডও এখন তার অধিকারে।

এদিন ম্যাচের ৩৫তম মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগেই এগিয়ে যায় ডর্টমুন্ড। মার্কো রয়েসের দেয়া পাসে সহজেই ফাঁকা জালে বল পাঠান হলান্ড। ৫৪তম মিনিটে স্পট কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন তিনি।

৬৮তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান কমান ইউসেফ এন-নেসিরি। ডি-বক্সে লুক ডি ইয়ং ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। যোগ করা সময়ে ইভান রাকিতিচের ক্রসে হেডে সমতা ফেরান তিনি। কিন্তু সফরকারীদের মাঠ ছাড়তে হয় ছিটকে পড়ার হতাশায়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.