নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি প্রথম হোভারক্রাফ্ট খুব শিগগিরই নৌবাহিনীতে যুক্ত করছে ইরান। দেশটির তরুণ বিজ্ঞানীদের এ সাফল্যকে সামরিক সরঞ্জামের ক্ষেত্রে আরও একধাপ স্বনির্ভরতা অর্জন হিসেবে দেখা হচ্ছে।

ইরানের নৌবাহিনীর নৌ ইউনিটের প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল হোসেইন খানজাদি সামরিক কমান্ডারদের এক সমাবেশে বলেন, নতুন ফার্সি বছরেই আমাদের তরুণ বিশেষজ্ঞদের তৈরি হোভারক্রাফ্ট নৌবাহিনীতে যুক্ত হবে।

খানজাদি বলেন, নৌবাহিনী ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তির ক্ষেত্রেও অত্যন্ত ভালো অবস্থানে রয়েছে। সব ইউনিটকেই ক্ষেপণাস্ত্রে সজ্জিত করা হয়েছে।

এ সময় তিনি নৌবাহিনীতে দেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় জাহাজের সংযুক্তির কথা তুলে ধরে বলেন, ভ্রাম্যমাণ বন্দর হিসেবে খ্যাত এই বিশাল জাহাজের সংযুক্তি গোটা জাতি ও সামরিক বাহিনীর জন্য গর্বের বিষয়।

তিনি আরও বলেন, দেশের মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাকে তাঁর বাহিনী পবিত্র দায়িত্ব বলে মনে করে এবং এই দায়িত্ব পালনে তারা কুণ্ঠাবোধ করবেন না।

গত জানুয়ারিতে ইরানের নৌবাহিনীতে ‘মাকরান’ নামের সর্ববৃহৎ জাহাজ যুক্ত হয়েছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.