নারায়ণগঞ্জে বাসার ভেতরে জমে থাকা গ্যাসের বিস্ফোরণে দগ্ধ একই পরিবারের ছয়জনের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম মো. মিশাল। তিনি ওই বাড়ির গৃহকর্তা ছিলেন।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। বিস্ফোরণে ওই ঘটনায় দগ্ধ বাকি পাঁচজনের অবস্থাও ভালো না।

মিশালের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া জানান, ২৬ বছর বয়সী মিশালের শরীরের ৯০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল।

বিস্ফোরণের ওই ঘটনায় দগ্ধ বাকিরা হলেন মিশালের স্ত্রী মিতা বেগম, তাদের চার বছর বয়সী মেয়ে আফসানা আক্তার, দেড় বছরের ছেলে মিনহাজ, মিশালের দুই শ্যালক মো. মাহফুজ এবং সাব্বির হোসেন। তাদের অবস্থাও ভালো না। এই পাঁচজনের শরীরের ১০ থেকে ৮০ শতাংশ দগ্ধ আছে।

গত সোমবার দিবাগত গভীর রাতে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম মাসদাইর এলাকার একটি বাসায় জমে থাকা গ্যাস থেকে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে মণ্ডলপাড়া ফায়ার স্টেশনের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়, তবে তার আগে স্থানীয়রাই আগুন নিভিয়ে ফেলেন। ওই বাসা থেকে দগ্ধ ছয়জনকে উদ্ধার করে পাঠানো হয় হাসপাতালে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.