দুই মাস পর (৬১ দিন) দেশে করোনার শনাক্তের সংখ্যা এক হাজার ছাড়াল। গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এর আগে সবশেষ চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি তার আগের ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

বুধবার বিকালে সংবাদমাধ্যমে পাঠানো স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত একদিনে ১৭ হাজার ৩২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে ১ হাজার ১৮ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। টানা ছয় দিন হাজারের নিচে থাকার পর গত ৭ জানুয়ারি সবশেষ শনাক্ত হাজার ছাড়ায় (১ হাজার ৭ জন)। এরপর দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা কমতে থাকে। ৯ জানুয়ারি সাতশোর ঘরে (৬৯২) নামে। সর্বশেষ ২৫ জানুয়ারি ৬০২ জন শনাক্তের তথ্য জানানো হয়। এরপর পাঁচ সপ্তাহ ধরে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছয়শোর নিচে ছিল। এমনকি ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে তিনশোর নিচেও নেমেছিল দৈনিক শনাক্ত। এরপর গত ৩ মার্চ থেকে শনাক্তের সংখ্যা টানা তিনদিন (৬১৪, ৬১৯, ৬৩৫) ছয়শোর বেশি হয়। এ পর্যন্ত ৪১ লাখ ৯৭ হাজার ৯৯৭টি নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৫৩ হাজার ১০৫ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দৈনিক শনাক্তের হার বেড়ে ৫.৯৮ হয়েছে। চলতি বছরের জানুয়ারির ১২ তারিখ শনাক্তের হার ৫ শতাংশে নামে, যা তার আগের ৯ মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম। আর ১৪ জানুয়ারি আরও কমে হয় ৪.৯০ শতাংশ। জানুয়ারির শেষ দুই সপ্তাহে শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকে। এরপর গত ৩ ফেব্রুয়ারি তার আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হন ৪৩৮ জন। এতে পরীক্ষার বিপরীতে একদিনে শনাক্তের হার কমে তিন শতাংশের (২.৯২) নিচে নামে, যা ২০১৯ সালের এপ্রিলের পর সবচেয়ে কম ছিল।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৭ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু ৮ হাজার ৪৯৬ জনের। নতুন যারা মারা গেছেন তাদের চারজন পুরুষ ও তিনজন নারী। এদের ৬ জন পঞ্চাশোর্ধ্ব ও একজন ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে।

এছাড়া উল্লেখিত সময়ে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ২৬৪ জন। এ নিয়ে ৫ লাখ ৬ হাজার ৬১৩ জন সুস্থ হয়েছেন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থতার হার ৯১.৫৯ শতাংশ, মৃত্যুর হার ১.৫৪ শতাংশ ও শনাক্তের হার ১৩.১৮ শতাংশ।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ; তা সোয়া ৫ লাখ পেরিয়ে যায় চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি। এর মধ্যে গতবছরের ২ জুলাই ৪ হাজার ১৯ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়, যা এক দিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। আর চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা হাজারের নিচে রয়েছে।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গতবছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সেবছরের ২৯ ডিসেম্বর তা সাড়ে সাত হাজার ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে গত বছরের ৩০ জুন এক দিনেই ৬৪ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়, যা এক দিনের সর্বোচ্চ মৃত্যু।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.