করোনাবিধি না মানায় এক যুবককে পিটিয়েছিল পুলিশ। সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই গ্রিসের এথেন্সের রাস্তায় নামে হাজার হাজার মানুষ। এক পর্যায়ে তাদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, যুবককে পুলিশের পেটানোর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। তারপরই অন্তত ৫ হাজার যুবক এথেন্সের রাস্তায় নেমে আসে। তাদের মধ্যে কয়েকশ বিক্ষোভকারী থানার দিকে অগ্রসর হন।

এসময় পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও রাবার বুলেট ছুঁড়ে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে চায়। এরপরই মূলত সংঘর্ষ শুরু হয়। এক পুলিশ সদস্যকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। তাকে পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তার মাথায় আঘাত লেগেছে বলে জানানো হয়েছে।

বিক্ষোভকারীদের হাতে ছিল পোস্টার ও ব্যানার। তাতে লেখা ছিল, ‘আমাদের পাড়া থেকে পুলিশ দূর হঠো’।

পুলিশের এই আচরণ নিয়ে সোচ্চার হয়েছেন বিরোধী রাজনীতিকরাও। তাদের দাবি, পুলিশ যুবকদের বিরুদ্ধে নির্মম আচরণ করেছে, যা মানা যায় না। তাদের অভিযোগ, সরকার করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ। তারা শুধু জোরজুলুম করতেই জানে।

গত কয়েক মাস ধরেই গ্রিসে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সম্পর্ক খারাপ হয়েছে। পুলিশ যেভাবে করোনা নিয়ে কড়াকড়ি করছে, তার প্রতিবাদ জানিয়েছেন মানবাধিকার কর্মীরা। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের ব্যবহারের নিন্দাও করেছেন তারা। বিক্ষোভকারীদের পাশাপাশি সাংবাদিক, আইনজীবীদের সঙ্গেও পুলিশ খুব খারাপ ব্যবহার করেছে বলে অভিযোগ।

গত জুলাইয়ে পার্লামেন্টে একটি আইন পাস হয়েছে, যেখানে বিক্ষোভ দেখানোর ওপর কড়াকড়ি করা হয়েছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.